ভিন্নস্বাদের পেস্তা বাদাম

পেস্তা বাদাম ভিন্নরঙের, ভিন্ন স্বাদের বলে অন্যান্য বাদামের তুলনায় পৃথিবীব্যাপী ব্যাপক চাহিদা তৈরী করেছে। হালকা বেগুনী এবং সবুজ রঙের এই বাদামকে হ্যাপিনাট বা হাসিখুশি বাদামও বলা হয়। কারণ এর আকৃতিটা দেখতে অনেকটা হাসিমাখা একটি মুখাবয়বের মতো। 

পেস্তা বাদামের রয়েছে নানাবিধ উপকারিতা। এর বিভিন্ন উপকারি দিক নিয়েই আজকের আলোচনা। 

পেস্তা বাদামের ইতিকথা
পেস্তা বাদাম আমেরিকায় বিভিন্ন অঞ্চলে বেশ ভালো জন্মে। যেমন ক্যালিফোর্নিয়া, নিউ মেক্সিকো এসব রাজ্যে পেস্তা বাদামের বেশ ভালো চাষ হয়। এসব অঞ্চল ছাড়াও তুরষ্ক, আফগানিস্তান, ইতালি এসব দেশেও পেস্তা বাদামের উৎপাদন হয় প্রচুর পরিমাণে। 
এই গাছ আকারে মূলত কিছুটা ছোট আকৃতির হয়ে থাকে। বালু মাটির উপর জন্মায় বলে মরুভূমি সংলগ্ন এলাকায় প্রচুর পরিমাণে পেস্তা বাদামের চাষ হতে দেখা যায়। 
পেস্তা বাদামের উপকারিতা
পেস্তা বাদাম অন্যান্য বাদামের মতই অত্যন্ত পুষ্টিকর। এতে রয়েছে দেহের জন্য প্রয়োজনীয় নানা রকম উপাদান। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির সাথে সাথে পেস্তা বাদামে উপস্থিত বিভিন্ন মিনারেলস হার্টের সুস্থতায় ভূমিকা রাখে। এর আরো নানাবিধ উপকারিতার গুটিকয়েকটি নিম্নে বর্ণিত হলো। 
  • পেস্তা বাদাম প্রচুর পরিমাণে ক্যালরির যোগান দেয়। যার ফলে তাৎক্ষণিক শক্তির জন্য, অথবা সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে এটি ভীষণ কার্যকরী। তাই সকালে অথবা রাতে যখনই পেস্তা বাদাম খান এটি শরীরের শক্তি যোগাবে নিমিষেই। 
  • পেস্তা বাদামে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার। অর্থাৎ এটি বিপাক ক্রিয়া এবং অন্ত্রের সুস্থতা বজায় রাখতে সহায়তা করে। 
  • ফসফরাস নামক মিনারেলস শরীরের বিভিন্ন কার্যকলাপ সুষ্ঠ রূপে সম্পন্ন করতে ভূমিকা রাখে। তাই, পেস্তা বাদাম মিনারেলসের অভাব পূরণের একটি উল্লেখযোগ্য উৎস। 
  • পেস্তা বাদামে থাকা ক্যালসিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজ শরীরের হাড়ের গঠনে এবং দৃঢ়তা বজায় রাখতে বিশেষভাবে কার্যকরী। 
  • পেস্তা বাদাম রক্তের উৎপাদন নিশ্চিত করে এবং স্নায়ুবিক সুস্থতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। তাই, নিয়মিত পেস্তা বাদাম খান এবং মানসিকভাবে সুস্থ থাকুন। 
  • চুল, নখের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে পেস্তা বাদাম প্রাকৃতিকভাবে ভীষণ কার্যকরী। পেস্তা বাদাম নিয়মিত খাবার ফলে চুল হবে ঝলমলে এবং মজবুত। 
  • সারাবিশ্বে অগণিত মানুষ ডায়াবেটিস নামক রোগে আক্রান্ত। কিন্তু পেস্তা বাদাম খাবার ফলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে যায় অনেকাংশে। শুধু ডায়াবেটিস রোগই না, এটি ছাড়াও নানাবিধ রোগ প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে সুস্বাদু এই পেস্তা বাদাম। 
পেস্তা বাদামের পুষ্টিগুণ 
পেস্তা বাদামে খাদ্যগুণে ভরপুর বিধায় মানবদেহের জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ভিটামিন এবং মিনারেলস রয়েছে এতে। প্রতি ১০০ গ্রাম পেস্তা বাদামে উপস্থিত পুষ্টি উপাদানের একটি তালিকা নিম্নবর্তী ছকে প্রদর্শিত হলো। 
প্রতি ১০০ গ্রাম পেস্তা বাদামে  উপস্থিত পুষ্টি উপাদান
শর্করা
৫৫৭  ক্যালোরি 
প্রোটিন
২০.৬১  গ্রাম
কার্বোহাইড্রেড
২৮  গ্রাম
সুগার
৭.৬  গ্রাম
ফ্যাট
৪৪  গ্রাম
স্যাচুরেটেড ফ্যাট
৫.৪ গ্রাম
কোলেস্টেরল
০ গ্রাম
সোডিয়াম
০১  মিগ্রা
ক্যালসিয়াম
১১  মিগ্রা 
ডায়েটারি ফাইবার
১০.৩ গ্রাম
পটাসিয়াম
১০২৫ মিগ্রা
একজন পূর্ণবয়স্ক সুস্থ মানুষের দৈনিক ২০০০ ক্যালোরি শক্তির দরকার হয়। 
পেস্তা বাদাম একজন মানুষের সুস্থ থাকার পক্ষে বিভিন্ন ধরণের পুষ্টি উপাদান যোগানের মাধ্যমে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই প্রতিদিনের খাদ্যাভ্যাসে, নাস্তায় অথবা অবসরে পেস্তা বাদাম হতে পারে একটি নিত্য অনুষঙ্গ। 
Please follow and like us: